ভয় তাড়াবে এলাচি, আরো আছে নানান গুণ

এলাচ বা এলাচি (ইলেট্টারিয়া কার্ডামম)। এর অন্যান্য নাম হচ্ছে কার্ডামম, মালাবার কার্ডামম, সিলন কার্ডামম। মসলা হিসেবে বহুল ব্যবহৃত। এটি একটি সুগন্ধি গাছ। এলাচি সুগন্ধিযুক্ত একটি মসলা। এলাচিকে বলা হয় মসলার রানি। খাবারে অতিরিক্ত স্বাদ বাড়ানোর জন্য ব্যবহার করা হয় এটি। এলাচিতে রয়েছে স্যাচুরেটেড ফ্যাট, পলিস্যাচুরেটেড ফ্যাট, মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাটসহ কিছু ঔষধি গুণ, যা সেবনে মানবদেহের অনেক সমস্যা সমাধান করতে সক্ষম এ ছোট মসলা। এলাচির মধ্যে কালো এলাচি বেশি কার্যকর। আমাদের দেশে যে এলাচি পাওয়া যায়, তাতেও কাজ হবে। এখানে দেওয়া হলো এলাচির উপকারিতা।

অস্থিরতা বা পালপিটিশন কমাতে

অনেকের অস্থিরতার সমস্যা রয়েছে—কোনো কারণে কিংবা অকারণে নানান বিষয়ে অস্থির হয়ে পড়েন। কোথাও যাচ্ছেন, রাস্তায় হঠাৎ জ্যাম, তখনই অস্থিরতা বেড়ে গেল। আবার কোনো পরিচিত মানুষের সঙ্গে দেখা হলে তার নাম মনে করতে পারছেন না—সেই থেকে শুরু হয়ে গেল অস্থিরতা। এ অস্থিরতা থেকে ঘাম হয় আর বুকের মধ্যে একধরনের অচেনা অনুভূতি কাজ করতে থাকে। বুক ধড়ফড় করতে থাকে।
এমন সমস্যার জন্য এলাচি খুব কার্যকর। নিয়মিত প্রতিদিন দুবেলা দুটি করে এলাচি মুখে রেখে আস্তে আস্তে চিবিয়ে খেলে এর উপকারিতা পাওয়া যাবে; অথবা দুটি এলাচি গরম পানিতে জ্বাল দিয়ে সেই পানি চায়ের মতো করে খেলেও উপকার পাওয়া যায়।

হার্ট ও হার্টের ভালভ সুস্থ রাখে

যাঁরা হার্টের ও হার্টের ভালভের সমস্যায় ভুগছেন, তাঁদের জন্য এলাচি একটি আদর্শ পথ্য। প্রতিবার খাওয়ার পর একটি এলাচি চিবিয়ে খেলে হার্ট সুস্থ থাকবে। অথবা দুটি এলাচি গরম পানিতে জ্বাল দিয়ে সেই পানি চায়ের মতো করে খেলেও উপকার পাওয়া যাবে।

ভয়জনিত সমস্যা

যাঁদের হার্টের সমস্যা নেই কিন্তু ভয়জনিত সমস্যা আছে, নানাভাবে ভীতি কাজ করে; ভিড়ের মধ্যে সমস্যা, অন্ধকারে সমস্যা, উচ্চ শব্দে সমস্যা, উত্তেজনা সহ্য হয় না; তাঁদের জন্য নিয়মিত প্রতিদিন দুবেলা দুটি করে এলাচি মুখে রেখে আস্তে আস্তে চিবিয়ে খেলে এর উপকারিতা পাওয়া যাবে।

মাড়ির রক্তপাত ও দাঁতের ক্ষয় প্রতিরোধে

আপনি কি মুখের দুর্গন্ধ, মাড়ি দিয়ে রক্তপাত অথবা দাঁতের ক্ষয় হওয়ার মতো মারাত্মক সমস্যায় ভুগছেন? তাহলে খাওয়ার পর একটি এলাচি মুখে নিয়ে চিবাতে পারেন। কেননা এলাচির তেল মুখের সমস্যা দূর করতে কার্যকর একটি ওষুধ। প্রতিদিন দুবেলা দুটি করে এলাচি মুখে রেখে আস্তে আস্তে চিবিয়ে খেলে এর উপকারিতা পাওয়া যাবে।

পেটের অস্থিরতা ও হজমে সহায়ক

আমরা প্রতিদিন হরেক ধরনের খাবার গ্রহণ করে থাকি; প্রয়োজনে এবং অপ্রয়োজনে নানান খাবার একসঙ্গে খেলে এবং অতিভোজনে পেটে অস্থিরতা তৈরি হয়, পেটে গ্যাস জমে, অজীর্ণ হয়; এমন অবস্থায় একটি এলাচি মুখে দিয়ে চিবিয়ে খেলে পেট ফাঁপার সমস্যা আস্তে আস্তে প্রশমিত হতে থাকবে। পেটের সমস্যা তৈরি হলে কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দেয়, যাতে পরে কঠিন সমস্যা দেখা দেয়, সে জন্য দুটি এলাচি এক কাপ পানিতে গরম করে চায়ের মতো করে পান করলে এ জটিল সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

প্রস্রাবের সমস্যা সমাধানে

বয়স বাড়ার সঙ্গে যেসব সমস্যা বেড়ে যায়, তার মধ্যে একটি হলো প্রস্রাবের গন্ডগোল। বিশেষ করে যাঁদের প্রস্রাব হতে চায় না, তাঁদের জন্য দুটি এলাচি এক কাপ পানিতে গরম করে চায়ের মতো করে পান করলে এ জটিল সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।

ক্যানসার প্রতিরোধে

এলাচি ক্যানসার প্রতিরোধে বিশাল ভূমিকা রাখতে সক্ষম, যা শুধু প্রতিরোধেই কাজ করে না, প্রাথমিক স্তরে ক্যানসার নির্মূলেও কাজ করে। এ জন্য ক্যানসার প্রতিরোধে নিয়মিত প্রতিদিন দুবেলা দুটি করে এলাচি মুখে রেখে আস্তে আস্তে চিবিয়ে খেলে এর উপকারিতা পাওয়া যাবে।

শ্বাস–প্রশ্বাসজনিত সমস্যা

শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত সমস্যা, হুপিং কাশি, ফুসফুসে সংক্রমণ ও হাঁপানির সমস্যায় যাঁরা ভুগে থাকেন, তাঁদের জন্য এলাচি খুবই উপকারী। নিয়মিত প্রতিদিন দুবেলা দুটি করে এলাচি মুখে রেখে আস্তে আস্তে চিবিয়ে খেলে এর উপকারিতা পাওয়া যাবে; অথবা দুটি এলাচি গরম পানিতে জ্বাল দিয়ে সেই পানি চায়ের মতো করে খেলেও উপকার পাওয়া যাবে।

বিভিন্ন কারণে মাথাব্যথা

মাথাব্যথার অনেক কারণ থাকে। সে জন্য স্থায়ী চিকিৎসা প্রয়োজন। মাথাব্যথা থেকে তাৎক্ষণিক মুক্তি পেতে চাইলে একটি এলাচি চিবিয়ে খেলে কিছুক্ষণের জন্য মাথা ব্যথা সারবে। সেই সঙ্গে এলাচি তেলের ব্যবহার করলে সুফল পাওয়া যায়।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ ও রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়

উচ্চ কিংবা নিম্ন রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ—উভয়ই রক্ত সঞ্চালনব্যবস্থায় ত্রুটির কারণে হয়ে থাকে। সে ক্ষেত্রে রক্ত সঞ্চালনব্যবস্থা যদি ঠিক করা যায়, তাহলে উচ্চ এবং নিম্ন রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে এসে যায়। এ জন্য কোনো ধরনের ওষুধের প্রয়োজন পড়ে না। কেবল নিয়মিত প্রতিদিন দুবেলা দুটি করে এলাচি মুখে রেখে আস্তে আস্তে চিবিয়ে খেলে এর উপকারিতা পাওয়া যাবে অথবা দুটি এলাচি গরম পানিতে জ্বাল দিয়ে সেই পানি চায়ের মতো করে খেলেও উপকার পাওয়া যায়।

শরীরকে বিষমুক্ত রাখতে

এলাচিতে প্রচুর ম্যাঙ্গানিজ আছে, যা শরীরে ক্ষতিকর উপাদানগুলোর বিরুদ্ধে লড়াই করার এনজাইম তৈরি করে শরীরকে বিষমুক্ত রাখে। খাবারের পাশাপাশি চায়ের সঙ্গেও এলাচি খেতে পারেন, যা শরীরকে বিশেষ সুবিধা দেয়।

এ মসলা আপনার জীবনকে সহজ করে দিতে পারে। আমাদের প্রাকৃতিক উপাদানগুলো এমনই, যার রাসায়নিক পদার্থ অনেক জটিল সমস্যার সমাধান করতে পারে। বিশেষ করে এ সময়ে যাঁদের মধ্যে প্যানিক কাজ করছে, তাঁদের জন্য এলাচি হতে পারে একটি পথ্য।

লেখক: আলমগীর আলম
খাদ্য, পথ্য ও আকুপ্রেশার বিশেষজ্ঞ

সম্পাদক

শাহীন তাজ 
ইমেইল- mrshaheentaj@gmail.com, sohojat2019@gmail.com
মোবাইল- ০১৮৭৮-৩৫৩৫৮৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: