ব্যস্ত বহর – দিল মুহাম্মদ

ওই দিকে জ্বলছে জায়নামাজ
কাঁদছে হাঁড়ি-পাতিল
উড়ছে ইট-পাথরের দেয়াল।

কেউ কেউ আত্মার রক্তে মেশা মাটিকে
উত্তম জৈবসার করে
শুকনো নোনা নদী থেকে দিচ্ছে সেচ
আর বারুদের খোসায় করছে ফুলের চাষ!

দুচোখ চেয়ে আছে দূর
কাছের বালি-ঝড়ে কেউ নেই মানুষ
থেমে থেমে ফিরে আসে কুকুরের দল!

অথচ এই দিকে দীর্ঘদিন দেখে আসা
ভালোলাগার চঞ্চলতাকে
হঠাৎ মনে হলো জিজ্ঞেস করতে –
‘আচ্ছা বন্ধু, তুমি কি আস্তিক; না নাস্তিক?’

এভাবেই চলে যায় ধর্মের কল
অন্ধের কারখানায় গড়ে ওঠে রঙিন চশমা
অথচ কথা ছিলো পথ হবে দুটি।

বস্তুত সাদা আর কালো মিশিয়ে
আমরা পান করি নর্তকীর সুরা।
সময় কোথায়! আজ এত ব্যস্ত যে-
কোথায় আর কালকে ভাববার অবসর!

মানুষ হয়ে মানুষের মতো এতসব
তেমন আর ভালো লাগে না;
অনিহার মনে বলে-
তারচেয়ে চলো খেলি পশুর মতো!

সমান অধিকার বলে কথা-
পশুরও তো সাধ থাকতে পারে- মানুষ হবার!

সম্পাদক

শাহীন তাজ 
ইমেইল- mrshaheentaj@gmail.com, sohojat2019@gmail.com
মোবাইল- ০১৮৭৮-৩৫৩৫৮৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: