দেশের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের বাজারে ঝড় তুলতে এলো অ্যাপল, স্যামসাং, ভিভো

সাম্প্রতিক সময়ে দেশের বাজারে একাধিক ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন বেশ নজর কেড়েছে বাজার পর্যবেক্ষকদের। এসব ফোন সৌখিন ব্যবহারকারীদের পছন্দের তালিকায় সহজেই জায়গা করে নিয়েছে তাদের ব্রান্ড ভ্যালু, ফিচার, স্টোরেজ ও নির্মাণ বৈশিষ্ট্যের কারণে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ কাঁপিয়ে বাংলাদেশের মার্কেটে এসব ফোন বিক্রি হচ্ছে দেদারছে। এদের মধ্যে আইফোন নির্মাতা কোম্পানি যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাপলের আইফোন ১১ প্রো, আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্স, চীনা কোম্পানি ভিভোর ভিভো এক্স৬০প্রো, দক্ষিণ কোরিয়া তথা বিশ্বের শীর্ষ স্মার্টফোন কোম্পানি স্যামসাংয়ের স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২০ এ্ফই অন্যতম।

অ্যাপলের আইফোন ১১ প্রো, আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্স স্মার্টফোন দুটি আইওএস ১৩ অপারেটিং সিস্টেমের। এছাড়াও এতে আছে ৫ দশমিক ৮ ইঞ্চি এবং ৬ দশমিক ৫ ইঞ্চির সুপার রেটিনা এক্সডিআর ওএলইডি ডিসপ্লে। ফোনে ব্যবহার করা হয়েছে এ১৩ বায়োনিক চিপ। এ দুটি ফোন পানি বা ধূলোতে সম্পূর্ণ নিরাপদ থাকবে বলে জানাচ্ছে কোম্পানিটি। অন্যান্য আইফোনের মতো এদুটি ফোনেও ব্যবহার করা হয়েছে অত্যন্ত উন্নত মানে ক্যামেরা। স্মার্টফোন দুটির পেছনে তিনটি ও সামনে একটি ক্যামেরা থাকবে । সামনের ক্যামেরাটি ১২ মেগাপিক্সেলের (এমপি) । আর পেছনের ক্যামেরাগুলো যথাক্রমে ১২ এমপির প্রাইমারি ক্যামেরা, ১২ এমপির ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা এবং ১২ এমপির টেলিফটো ক্যামেরা। ফোন দুটি কিনতে চাইলে, ৬৪ জিবি স্টোরেজের আইফোন ১১ প্রোর দাম পড়বে ৮৪ হাজার ৯১৫ টাকা। তবে ২৫৬ জিবি ও ৫১২ জিবির সংস্করণগুলো কিনতে খরচ হবে ৯৭ হাজার ৬৬৫ টাকা। এদিকে আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্সের ৬৪ জিবি ভেরিয়েন্টের দাম ৯৩ হাজার ৪১৫ টাকা। আবার ২৫৬ জিবি ও ৫১২ জিবি ভেরিয়েন্ট কিনতে লাগবে এক লাখ ছয় হাজার ১৬৫ টাকা।

ফ্ল্যাগশিপ মার্কেটে ঝড় তুলতে চীনের কোম্পানি ভিভো নিয়ে এসেছে ভিভো এক্স৬০প্রো। এটি দেশের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের তালিকায় প্রবেশ করেছে আকর্ষণীয় দাম, ফিচার ও প্রযুক্তির ব্যবহার নিয়ে। এমনিতেই দেশের অন্যতম জনপ্রিয় স্মার্টফোন কোম্পানি। এই স্মার্টফোনটিতে ভিভো ও কার্ল জেইসের যৌথ প্রকৌশলে তৈরি মোবাইল ইমেজিং সিস্টেম যুক্ত করা হয়েছে। চমৎকার লেন্সের জন্যে ফোনের ক্যামেরাটি পেশাদার মানের ফটোগ্রাফি এবং ভিডিও নিতে সক্ষম। ছবি তোলা বা ভিডিও করতে গেলে প্রায়ই মোবাইলের ক্যামেরা কেঁপে গিয়ে ঝাপসা হয়ে ওঠে, যা এড়াতে ভিভো এক্স৬০প্রোতে যুক্ত করা হয়েছে গিম্বল স্টেবিলাইজেশন ২.০ প্রো প্রযুক্তি। ১২ জিবি র্যা মের সঙ্গে ভিভো এক্স৬০ প্রোতে রয়েছে ২৫৬ জিবির রম এবং ৩৩ ওয়াটের ফ্ল্যাশ চার্জিং সুবিধা । পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত ও পাকিস্তানে ভিভো এক্স৬০প্রো বেশি জনপ্রিয় হয়েছে এর ক্যামেরার ফিচারগুলোর জন্যেই। বাংলাদেশে ভিভো এক্স৬০প্রোর মূল্য ৬৯ হাজার ৯৯০ টাকা। বাংলাদেশে এটিই ভিভোর প্রথম এক্স সিরিজ এবং হাই-এন্ডের স্মার্টফোন।

তালিকার শেষের স্মার্টফোনটি স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২০ এ্ফই। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠিত ব্রান্ড স্যামসাং দেশের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের বাজারে আগে থেকেই আধিপত্য ধরে রেখেছে। নতুন এই ফোনটি স্যামসাং এনেছে তার ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে। ফোনটিতে রয়েছে ৩২ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরার পাশাপাশি ১২ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড, একটি ১২ মেগাপিক্সেল ওয়াইড ও ৮ মেগাপিক্সেল টেলিফটো লেন্সযুক্ত ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা। টেট্রা-বাইনিং প্রযুক্তিসমৃদ্ধ এই ক্যামেরাগুলোর মাধ্যমে আরও অল্প সময়ের মধ্যে ঝকঝকে সব ছবি তোলা যায়। গ্যালাক্সি সিরিজের ফোনটিতে ব্যবহৃত ইমেজ সেন্সরগুলোয় রয়েছে মাল্টি-ফ্রেম প্রসেসিং, যার মাধ্যমে স্বল্প আলোতেও তোলা যাবে স্পষ্ট ও বর্ণিল ছবি। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) ফ্রেম ইন্টিগ্রেশনের সমন্বয়ে ক্যামেরার নাইট মোড মাল্টি-ফ্রেম প্রসেসিং সুবিধা যেকোনো রেকর্ডিংয়ে চলমান বস্তুকে সুস্থির করে তোলে। দূর থেকে ছবি তোলার সুবিধার্থে গ্যালাক্সি এস২০ এফই মডেলটিতে রয়েছে ৩০ এক্স স্পেস জুম।

গ্যালাক্সি এস২০ এফই মডেলটিতে থাকছে ৪৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি, এক্সিনোস ৯৯০ প্রসেসর, ২৫ ওয়াটের সুপার-ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। আইপিসিক্সটিএইট রেটিং–সমৃদ্ধ ডিভাইসটি সম্পূর্ণরূপে পানি ও ধুলোবালু–নিরোধক। ৬ অথবা ৮ জিবি র্যা মের সঙ্গে স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২০ এ্ফইতে রয়েছে ১২৮ অথবা ২৫৬ জিবি রম। বাংলাদেশে স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২০ এ্ফই এর মূল্য ৬৪ হাজার ৯৯৯ টাকা।

Avatar

মৃণ্ময়ী মেঘ

জন্ম- ২০ এপ্রিল ২০২১ 
আগ্রহ – কবিতা, গল্প ও টেক রিভিউ, বিজ্ঞান
ময়মনসিংহ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: