এই ইদে মটোরোলার দুই স্মার্টফোন

স্মার্টফোনের বাজারে বিভিন্ন কোম্পানি একের পর এক চমক নিয়ে হাজির হচ্ছে। প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে নেই মটোরোলা। এক সময় দেশের বাজারে ফিচারফোনে চমক দেখালেও এখন নেই সেই কদর। সেই বাজার উদ্ধার করতেই হ্যান্ডসেটের বাজারে এই ইদে সাশ্রয়ী দুটি মডেলের স্মার্টফোন এনেছে মটোরোলা। একটি হচ্ছে মটোরোলা জি১০ এবং অন্যটি হচ্ছে মটোরোলা জি৩০। স্মার্টফোন দুটি পাওয়া যাবে বিভিন্ন অনলাইন শপ ও মোবাইল শপে। আপনি যদি নতুন স্মার্টফোন কেনার চিন্তা করেন তবে আসুন এক নজরে দেখে নিই স্মার্টফোন দুটির ফিচার এবং বৈশিষ্ট্য।

মটোরোলা জি১০ পাওয়ার 

স্মার্টফোন কিনতে গেলে প্রথমেই আমরা খোঁজ করি তার ক্যামেরা দক্ষতা। আর এ কারণেই প্রতিটি কোম্পানি নিত্য নতুন ক্যামেরা সেটাপ, ক্যামেরা ফিচার এবং গুনে গুনে অধিক ক্যামেরা বসায় ব্যাক সাইটে। আজকাল কোয়াড ক্যামেরা থাকতে হবে যেন প্রতিটি ফোনে। মটোরোলা জি১০ পাওয়ার ফোনটির পেছনে কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ, বিশাল ব্যাটারি, ফাস্ট চার্জার। মটো জি১০ পাওয়ার হতে পারে আপনার বাজেটের মধ্যে সেরা ফোন। কারণ ফোনটির প্রাইমারি ক্যামেরা ৪৮ মেগাপিক্সেল, ৮ মেগাপিক্সেলের আলট্রাওয়াইড, ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো ক্যামেরা, সঙ্গে ২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ সেন্সর। প্রাইমারি ক্যামেরা এবং আল্ট্রাওয়াইড ক্যামেরা আপনাকে সম্পূর্ণ স্যাটিসফাইড করবেই। তবে ম্যাক্রো এবং ডেপথ সেন্সর আরো বেশি মেগাপিক্সেলের মধ্যে হলো ভালো হতো। ৮ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা সেলফি তোলা যাবে মনের মতো।

২০:৯ স্ক্রিন রেশিওতে থাকছে ৬.৫ ইঞ্চি এইচ ডি প্লাস ডিসপ্লে। এক্ষেত্রে আপনার চাহিদা হয়তো ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে হলে আরো ভালো হতো। এতে আছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৪৬০ প্রসেসর, যা কাজ চালিয়ে নেবে চাহিদামতো। সঙ্গে ৬০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের মনস্টার ব্যাটারি, সাধারণ ব্যবহারকারী দুই থেকে তিন দিন পর্যন্ত ব্যাকআপ পাবেন নিশ্চিন্তে। আর ২০ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার তো আছেই। তাই লম্বা সময়ের জন্য চার্জে বসিয়ে রাখারও প্রয়োজন হবে না।

স্টক অ্যান্ড্রয়েড বিল্টইন হওয়ায় অহেতুক অ্যাড’র ঝক্কি পোহাতে হবে না। সময়ের সেরা আপডেট অ্যান্ড্রয়েড ১১ থাকছে ফোনে। এতে আছে ৪ জিবি র্যা ম এবং ৬৪ জিবি রম। তাই মটো জি১০ পাওয়ার হতে পারে আপনার বেস্ট বাজেট ডিল। ‘ব্রিজ ব্লু’ এবং ‘অরোরা গ্রে’ দুটি রঙে পাওয়া যাবে বাংলাদেশের বাজারে। ফোনের ব্যাক প্যানেলে ডিজাইন, টেক্সচার বাড়তি করে নজর কাড়বে।

বাজেট ফোনে আইপি ৫২ রেটিং করা৷ অর্থাৎ ডাস্ট এবং ওয়াটার স্প্যাশ রেজিস্ট্যান্ট। অফিসিয়াল লঞ্চের দিন এর বাজার মূল্য ঘোষণা করা হবে। তবে ধারণা করা যাচ্ছে মটো জি১০ পাওয়ারের দাম ১৪ থেকে ১৫ হাজারের মধ্যে থাকতে পারে।

মটোরোলা জি ৩০

যাদের বাজেট একটু বেশি, তারা চাইলেই একটা প্রিমিয়াম ভ্যালু ফোন পকেটে পুরতে কিছু টাকা বাড়াতেই পারেন। সেক্ষেত্রে মটো জি৩০ হতে পারে আপনার পছন্দের সেরা স্মার্টফোনের একটি। ৬.৫ ইঞ্চি এইচডি প্লাস ডিসপ্লে ব্যবহারে বেশ স্বাচ্ছন্দ্য দেবে, পাশাপাশি ৯০ হার্জ রিফ্রেশ রেট যোগ করবে বাড়তি স্মুথনেস৷ এতে মটোরোলা জি১০ পাওয়ারের ডিসপ্লে নিয়ে যে খুঁতখুতানি ছিলো তা মিটবে। এই মডেলের ডিজাইনে ক্যামেরাতে বাড়তি মনোযোগ দিয়েছে মটোরোলা। ৬৪ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা, ৮ মেগাপিক্সেল আলট্রাওয়াইড, ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রোভিশন ক্যামেরা, সঙ্গে ২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ সেন্সর টেক্কা দিবে যে কোন বাজেট ফোনকে। এর পারফেক্ট পিকচার কোয়ালিটি ব্যবহারে দিবে আনন্দ। কারণ ১৩ মেগাপিক্সলের ফ্রন্ট ক্যামেরা সেলফিতে যোগ করবে নিখুঁত ছবি। আর এতে আছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৬২ প্রসেসর, যা আপনাকে দিবে স্মোথ গেমিং অভিজ্ঞতা।

স্মার্টফোনটি দুটি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাবে ফোনটি৷ ফলে সুযোগ থাকবে ভ্যারিয়েন্ট পছন্দের। ৪ জিবি+৬৪ জিবি এবং ৬ জিবি+ ১২৮ জিবি যেকোনটি নিতে পারেন চাহিদামতো। সুন্দর নিখুঁত ছবি, স্মোথ গেমিং অভিজ্ঞতা আরও বাড়াতে এতে আছে ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি ব্যাকআপ। একে চার্জ করতে বক্সে আছে ২০ ওয়াটের টার্বো পাওয়ার চার্জার।

এটিও চলবে স্টক অ্যান্ড্রয়েড ১১। এর পেছনে আছে ফিঙ্গার সেন্সর, পাশে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট বাটন। দুটি কালার নিশ্চিত করেছে মটোরোলা। প্যাটেল স্কাই এবং ডার্ক পার্ল। এই ফোনে গতানুগতিক রং থেকে বেরিয়ে মটোরোলার ডিজাইন, টেক্সচারে স্মার্ট ফোনকে করেছে ফ্যাশনেবল। বাজারে মটো জি৩০ -এর মূল্য ১৮ থেকে ১৯ হাজার টাকার মধ্যে হতে পারে বলে ধারণা করা যাচ্ছে।

অ্যাপল, স্যামসাংয়ের মতোই মটোরোলা প্রথমবারের মতো আপনার ব্যক্তিগত তথ্য, ডিজিটাল পরিচয় এবং ফোনের সুরক্ষা নিশ্চিতে হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার দুই সলিউশনই নিয়ে এসেছে। তারা একে বলছে ‘Think Shield Security’। বাজেট ফোনে এর আগে কখনো এমন সুরক্ষাবলয় লক্ষ্য করা যায়নি। এই ব্যবস্থায় আপনি ব্যক্তিগত তথ্য, অনলাইন ব্যাংকিংসহ যেকোনও কাজ করতে পারবেন কোন দুশ্চিন্তা ছাড়াই। হ্যাকার বা দুষ্টুচক্র চাইলেই আপনার মটোরোলা ডিভাইস হ্যাক করতে পারবে না। তাই নিশ্চিন্তে কিনে নিতে পারেন আপনার পছন্দের সেরা স্মার্টফোনটি।

সম্পাদক

সম্পাদক

শাহীন তাজ 
জন্ম ২ জানুয়ারি, গফরগাঁও, ময়মনসিংহ।
আগ্রহ -  কবিতা, গল্প, প্রবন্ধ ও ফিচার।
সম্পাদনা -  সাহিত্য সমাচার, কিশোর আনন্দ, সহজাত
প্রকাশিত বই-
কবিতাগ্রন্থ- সেলাইকল (২০১৮), স্মৃতিগন্ধনগর (২০২০) ছায়াবীথি প্রকাশন
গল্পগ্রন্থ- আমার প্রথমা (২০১৩)
ইমেইল- mrshaheentaj@gmail.com, sohojat2019@gmail.com
মোবাইল- ০১৮৭৮-৩৫৩৫৮৮

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: